প্রকৃতির স্বভাব যে বদলেছে, সে কথা একবাক্যে আজকাল বলছেন বিশেষজ্ঞ থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ সবাই। পৃথিবী ক্রমশ উষ্ণ থেকে উষ্ণতর হয়ে উঠছে। সঙ্গে রয়েছে দূষণ। সব মিলিয়ে গ্রীষ্মের মতো ঋতু এখন আমাদের দেশে চরম আকার ধারণ করে।

ফলে, প্রতিনিয়তই এই গরমকে বাগে রাখার নানা অভিনব যন্ত্র আবিষ্কারের খবর পাওয়া যায়, সবই আসলে কুলারের নানা রূপ, যেমন কাঠের কুলার, পাথরের কুলার। কিন্তু শুধু দাম নয়, বিকল্প এই উপাদানগুলো দিয়ে কুলার তৈরি করার আসল কারণটা থেকে যাচ্ছে লোকচক্ষুর অগোচরেই।

বছরের পর বছর ধরে যাঁরা কুলার ব্যবহার করে চলেছেন, তাঁরাও একটা বিষয় নিয়ে সেভাবে সচেতন নন। কুলারের আসল জিনিস কী? না, সেটা হল তার ট্যাঙ্ক। এই ট্যাঙ্কে যে জল ভরা থাকে, তা বাষ্পীভূত হয়েই না ঘর শীতল হয়! ফলে, জেনে সবাই যতই অবাক হন না কেন, এই ট্যাঙ্ক রঙ করিয়ে রাখা দরকার। অনেক সংস্থা আজকাল ট্যাঙ্ক রঙ করিয়েই কুলার বিক্রি করছে গ্রাহকদের, এর থেকেও বিষয়টার প্রয়োজনীয়তা বোঝা যায়। কেন তা না করলেই নয়, জেনে নেওয়া যাক সংক্ষেপে।

মরচে থেকে সুরক্ষা

কুলার মূলত তৈরি হয় ধাতু থেকে। জলের সংস্পর্শে এলে ধাতুর গায়ে মরচে ধরবেই। ফলে, কেউ যদি বছরের পর বছর নিশ্চিন্তে কুলার ব্যবহার করতে চান, তাহলে ট্যাঙ্ক রঙ করিয়ে নিতেই হবে। এর জন্য লোক ডাকার দরকার নেই। একদিন কুলারটার সব জল ফেলে দিয়ে তা শুকিয়ে নিতে হবে। এর পরে মেটাল প্রাইমার দিয়ে রঙ করে নিলেই হল, এমন কিছু ঝক্কির কাজ নয়।

পোকামাকড় থেকে সুরক্ষা

দিনের পর দিন ব্যবহার হলে কুলারের ট্যাঙ্কে যে শ্যাওলা জমবে, তাতে নানা পোকামাকড় জন্মাতে পারে, বাসা বাঁধতে পারে। তা এক সময়ে গিয়ে সমস্যায় ফেলতে পারে ব্যবহারকারী এবং পরিবারের সদস্যদের। তাই এক কাপ কেরোসিন তেল রঙের সঙ্গে মিশিয়ে নিলে এই উৎপাতের হাত থেকেও সুরক্ষিত রাখা যায় ঘরবাড়ি।

দুর্গন্ধ থেকে মুক্তি

কুলারের জল সব সময় নিয়ম করে বদলানো হয় না। এতে শ্যাওলা জমে একটা দুর্গন্ধ তৈরি হতে থাকে। কুলার চালালে সেই দুর্গন্ধ ঘরেও ছড়িয়ে পড়ে। এর হাত থেকে মুক্তির জন্যও ট্যাঙ্কটা রঙ করিয়ে রাখা উচিত- তাতেই সব সমস্যার সমাধান হবে।

TRAVONEWS BANGLA সবার আগে পড়ুন ব্রেকিং নিউজ। থাকছে দৈনিক টাটকা খবর, খবরের লাইভ আপডেট। সবচেয়ে ভরসাযোগ্য বাংলা খবর পড়ুন TRAVONEWS.IN বাংলার ওয়েবসাইটে

Tags: Cooler, Summer, Tech tips

-Travo News

for More

Like and Subscribe

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Verified by MonsterInsights