প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) ভারতের (India) মাটিতে প্রতিরক্ষা শিল্পকে বিকশিত করার কথা ইতিমধ্যেই বলেছেন। পাশাপাশি, জোর দিচ্ছেন স্বদেশে প্রতিরক্ষা শিল্পকে আরও শক্তিশালী করে তুলতে। এই প্রসঙ্গে এনডিএ সরকারের তরফে জোরকদমে প্রচারও চালানো হচ্ছে। এদিকে, লোকসভা নির্বাচনের আগে এমন কিছু তথ্য জানা গিয়েছে, যা প্রধানমন্ত্রীর এহেন দাবির যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলছে। ইউরোপিয়ান থিঙ্ক ট্যাঙ্ক স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইন্সটিটিউট চাঞ্চল্যকর সমীক্ষা রিপোর্ট প্রকাশ করেছে।সেখানে দেখা গিয়েছে, ভারত সারা বিশ্বের নিরিখে অস্ত্র আমদানিতে প্রথম স্থানাধিকারী দেশ। এমতাবস্থায়, সারা বিশ্বজুড়ে সমস্ত দেশ যত সংখ্যক অস্ত্র আমদানি করে থাকে তার মধ্যে ৯.৮ শতাংশ আমদানি করে ভারত। উল্লেখ্য যে, ভারতে স্বাধীনতার পর থেকে এখনও পর্যন্ত নানা ধরণের আর্থ-সামাজিক সমস্যা রয়েছে। পাশাপাশি, দারিদ্রও এক বিরাট সমস্যা। আরেক গুরুতর সমস্যা হল বহু শিশুর ন্যূনতম শিক্ষালাভের সুযোগ না পাওয়া। এই পরিস্থিতিতে প্রচুর সংখ্যক অস্ত্র কিনে কেন্দ্রীয় সরকার বহু কোটি টাকা খরচ করায় দেশের মানুষের লাভ কি হচ্ছে, এই প্রশ্নেরই উত্তর খুঁজছেন সবাই।স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইন্সটিটিউটের সমীক্ষা অনুসারে, রাশিয়া ও ফ্রান্স থেকে ভারত সবচেয়ে বেশি অস্ত্র আমদানি করে। এরপরই রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্থান। ২০১৪ সালে এনডিএ সরকার কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন হওয়ার পরে ২০১৮ সাল থেকে রাশিয়া, ফ্রান্স এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে অস্ত্র কেনা বাড়ানোর জেরে ওই সময়সীমায় সারা বিশ্বের সব দেশের তুলনায় ভারতই ১১ শতাংশ অস্ত্র আমদানি করেছে। এদিকে, ২০১৯ সালে ফের এনডিএ সরকার ক্ষমতায় আসার পরে বিদেশি রাষ্ট্রগুলি থেকে অস্ত্র আমদানি কিছুটা কমে ২০২৩ সালে শতাংশে্র হিসেবে ৯.৮ শতাংশে এসে ঠেকেছে বলে জানা গিয়েছে থিঙ্ক ট্যাঙ্কের প্রকাশিত রিপোর্টে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Verified by MonsterInsights