বেশিরভাগ বাঙালিই ঘোরতর আমিষাশী। মাছ, মাংসের পরেই বাঙালির প্রিয় খাদ্য হল ডিম। ডিম অত্যন্ত পুষ্টিকর আমিষ খাদ্য। তবে শুনলে অবাক হবেন, সপ্তদশ শতাব্দী পর্যন্ত বাঙালি ডিম খেত না। আজও উত্তর ভারতের বহু হিন্দু বাড়িতে ডিম খাওয়া নিষিদ্ধ। আইনি আকবরিতে ডিম রান্নার কথা রয়েছে। মুরগির মতো ডিমকেও আগে মনে করা হত মুসলমানি খাবার। তাই মুঘলদের মধ্যে জনপ্রিয় হলেও ভারতীয় হিন্দু ঘরে ডিম রান্না হত না। যদিও বুদ্ধদেব নাকি তাঁর শিষ্যদের ডিম খাওয়ার অনুমতি দিয়েছিলেন।

বর্তমানে অবশ্য ওসব নিষেধের আর কেউ ধার ধারে না। ব্রেকফাস্ট টু ডিনার, ডিম খেতে ভালোবাসেন না এমন বাঙালি মেলা ভার।ডিম সিদ্ধ, হাফ বয়েল, ডিমের পোচ, ডিমের ওমলেট, ডিমের ঝোল, ডিমের কষা, ডিমের ঝুরি, ডিমের ডেভিল, ডিমের চপ, ডিপের বড়া এবং ডিপের পকোড়া রান্নার যেমন চল রয়েছে, তেমনই ডিম দিয়ে কেক, পুডিং, মেয়োনিজও তৈরি করা হয়। হাঁস, মুরগি, কোয়েল, কচ্ছপ, পায়রা বিভিন্ন প্রাণীর ডিম খাওয়ার চল রয়েছে। তবে সবচেয়ে জনপ্রিয় হল মুরগির ডিম। আর আজ সেই মুরগির ডিম দিয়েই তৈরি হবে ‘ডিম কাসুন্দি’। কাসুন্দিও তৈরি করে ফেলুন খুব সহজেই।

ডিমের কাসুন্দির রেসিপি

ডিমের কাসুন্দির রেসিপি

উপকরণ

  • ডিম- ৮টি
  • সাদা সর্ষে- ২ টেবিল চামচ
  • কালো সর্ষে- ১ টেবিল চামচ
  • নুন- স্বাদমতো
  • কাঁচালঙ্কা- ৩টি
  • লেবুর রস- ১/২ চা চামচ
  • ধনে পাতা- খানিকটা
  • নারকেল কোরা- ২ টেবিল চামচ
  • হলুদ- ২ চা চামচ
  • লঙ্কাগুঁড়ো- ১/২ চা চামচ
  • তেজপাতা- ১টি

প্রণালী

  • ডিম সিদ্ধ করে ছাড়িয়ে নিন। সিদ্ধ করার সময় জলে নুন দিয়ে নেবেন। তাহলে খোসা ছাড়ানোর সময় ডিম ভেঙে যাবে না।
  • এবার ছুরি বা সুতো দিয়ে ডিম কেটে অর্ধেক করে নিন।
  • ডিম কাসুন্দি যখন রাঁধছেন, তখন কাসুন্দির দরকার হবে। তবে বাজারের কেনা কাসুন্দি নয়, সেটি বানিয়ে নিতে হবে নিজেকেই। আর ফ্রিজে রেখে দিলে এটি অন্য রান্নাতেও ব্যবহার করতে পারবেন।
  • কাসুন্দিটা রান্নার বেশ কিছুক্ষণ আগে তৈরি করে রাখতে হবে। নাহলে তার তেতো ভাবটা যাবে না।
  • প্রথমে সাদা এবং কালো সর্ষে শুকনো করে মিহি গুঁড়ো করে নিন। একদমই জল দেবেন না।
  • এবার এতে কাঁচালঙ্কা, নুন, লেবুর রস, ধনেপাতা, নারকেল কোরা এবং আধ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো দিয়ে বেটে নিন। প্রয়োজনে সামান্য জল মেশান। পেস্ট যেন একদম মিহি হয়।
  • কড়াইয়ে সর্ষের তেল দিয়ে অর্ধেক করে কাটা ডিম ভেজে নিন। ভাজার সময় কুসুমের দিকটি আগে ভাজবেন। তাহলে সেটি ডিম থেকে বেরিয়ে যাবে না।
  • ডিম ভাজা হয়ে গেলে পরিমাণ মতো সর্ষের তেল গরম করে তাতে তেজপাতা ফোঁড়ন দিন।
  • এতে দিয়ে দিন আধ চামচ হলুদ এবং লঙ্কার গুঁড়ো। অল্প নেড়ে তাতে সর্ষের পেস্টটা দিয়ে দিন। ভালো করে নেড়ে নিন।
  • অল্প আঁচে সর্ষের পেস্ট নাড়াচাড়া করে হবে। কিছুক্ষণের মধ্যে তা থেকে তেল বের হতে দেখা যাবে। সর্ষেটাও খানিকটা শুকিয়ে যাবে।
  • এবার প্রয়োজনমতো জল দিন। ডিমের কাসুন্দি মাখা মাখা খেতেই ভালো লাগে।
  • জল ফুটতে শুরু করার খানিক্ষণ পরে তাতে সাবধানে ডিমের ভাজা টুকরো দিয়ে ফোটাতে থাকুন।
  • খানিক্ষণ জল ফোটার পর দেখবেন ফের তা থেকে তেল বের হচ্ছে। তার মানে রান্না হয়ে গেছে। উপরে ধনে পাতা কুচি ছড়িয়ে দিন।
  • রান্না থেকে সর্ষের আলাদা একটা ঝাঁঝ বের হবে। সর্ষের গ্রেভিতে ডিমের কুসুম মিশে গিয়ে একটা অনবদ্য স্বাদ তৈরি করবে।

TRAVONEWS BANGLA সবার আগে পড়ুন ব্রেকিং নিউজ। থাকছে দৈনিক টাটকা খবর, খবরের লাইভ আপডেট। সবচেয়ে ভরসাযোগ্য বাংলা খবর পড়ুন TRAVONEWS.IN বাংলার ওয়েবসাইটে

-Travo News

for More

Like, Subscribe and Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Verified by MonsterInsights