প্রিন্স দ্বারকানাথ ঠাকুর ছিলেন বিলাসী এবং সৌখিন পুরুষ। সব কিছুতেই এলাহী আয়োজন ছিল তাঁর পছন্দ। খরচও করতেন হাত খুলে। বাবুর্চি, খানসামাদের হাতের দেশি বিদেশি পদ খেয়ে এবং খাইয়ে তৃপ্ত হতেন তিনি। অন্যদিকে ভোগবিলাস আড়ম্বরপূর্ণ জীবন না পসন্দ ছিল মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথের। বাড়ির মহিলাদের হাতের রান্না খেতেই পছন্দ করতেন তিনি। বাড়িতে রান্না করা ডাল, বড়ি ভাজা, আলুভাতে, মাছের ঝোল আর অম্বল ছিল তাঁর পছন্দের খাবার। মহর্ষি যখন জোড়াসাঁকোয় থাকতেন, তখন সারদাসুন্দরী দেবী নিজে তদারক করে রান্না করাতেন। তাঁর মৃত্যুর পর মহর্ষির দেখাশোনার দায়িত্ব নিয়েছিলেন রবীন্দ্রনাথের বড়দিদি সৌদামিনী। বারোমাস বাবার জন্য অম্বল বানাতেন।

রান্নায় পটিয়সী ছিলেন শরৎকুমারী, সরোজাসুন্দরীরাও। শোনা যায়, একটা সময় ঠাকুরবাড়ির মেয়েদের নাকি রীতিমতো রান্নার ক্লাস হত। প্রতিদিন একটা করে নতুন তরকারি রান্না করতে হত তাঁদের। তাঁদের নেত্রী ছিলেন গুণেন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্ত্রী সৌদামিনী দেবী (ঠাকুরবাড়ির আরেক সৌদামিনী)। তবে ঠাকুরবাড়ির এই ঘরোয়া রান্নাবান্নাকে সাধারণ মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার কৃতিত্ব দেবেন্দ্রনাথের তৃতীয় পুত্র হেমেন্দ্রনাথ ঠাকুরের মেয়ে প্রজ্ঞাসুন্দরীর। তাঁর লেখা রান্নার বই থেকে নতুন এবং অভিনব রন্ধন কৌশলের খোঁজ পাওয়া যায়। সেরকমই একটা পদ হল লাউ কাঁকড়া। বড়ি দিয়ে নিরামিষ লাউয়ের তরকারি বা লাউ চিংড়ির স্বাদ হয়তো সকলেই জানেন। কাঁকড়া কষা কিংবা কাঁকড়ার মশলাদার ঝোলও অনেকে খেয়েছেন। কিন্তু লাউ কাঁকড়ার তরকারি অনেকেই হয়তো খাননি। কিংবা খেলেও সেটি যে ঠাকুরবাড়ির আবিষ্কার তা হয়তো জানেন না।

আজ তাহলে ঠাকুরবাড়ির লাউ কাঁকড়া রান্নাটি শেখা যাক। লাউ কাঁকড়া রাধতে অনেকেই নিজেদের মতো করে রান্নার মশলা ব্যবহার করে থাকেন। তবে ঠাকুরবাড়ির হেঁশেলে সাবেকি নিয়মে যে মশলা ব্যবহার করা হত এখানে শুধু সেগুলিই দেওয়া হল।

লাউ কাঁকড়ার রেসিপি

উপকরণ
  • কাঁকড়া- ২৫০ গ্রাম
  • লাউ- ৫০০ গ্রাম
  • কাঁচা লঙ্কা- ৪-৫টি
  • হলুদ গুঁড়ো- ২ চা চামচ
  • জিরে-গোলমরিচ বাটা- দেড় টেবিল চামচ
  • পাঁচ ফোঁড়ন- ১ চা চামচ
  • পেঁয়াজ- ১টা
  • আদা- ১ ইঞ্চের থেকে একটু কম
  • ঘি- ২ টেবিল চামচ
  • তেল- ভাজার জন্য
  • নুন- পরিমাণ মতো
  • চিনি- সামান্য

(সাবেকি রান্নায় তেজপাতা, গরম মশলা কিংবা টোম্যাটোর উল্লেখ না থাকলেও অনেকেই এগুলি ব্যবহার করে থাকেন)

প্রণালী

  • কাঁকড়া ভালো করে পরিষ্কার করে ছাড়িয়ে নুন হলুদ মাখিয়ে রাখুন।
  • লাউ সরু লম্বা করে কুচিয়ে নিন।
  • পেঁয়াজ এবং আদা বেটে নিন।
  • কাঁচা লঙ্কা আলাদা করে বেটে নিন।
  • একটি বাটিতে সামান্য জল নিয়ে তাতে কাঁচালঙ্কা বাটা, হলুদ এবং জিরা-মরিচ বাটা গুলে নিন।
  • কড়াইয়ে তেল গরম করে কাঁকড়া ভেজে নিন।
  • ভাজা হয়ে গেলে এতে দিয়ে দিন লাউয়ের কুচিগুলি। ভালো করে নাড়া চাড়া করুন।
  • দিয়ে দিন মশলা বাটা এবং নুন।
  • ভালো করে কষান। লাউ ভালো মতো সিদ্ধ হয়ে গেলে কড়াই নামিয়ে নিন।
  • অন্য একটি পাত্রে ঘি গরম করুন। তাঁতে দিন পাঁচফোঁড়ন। সুগন্ধ উঠলে দিয়ে দিন পেঁয়াজ ও আদা বাটা।
  • কষাতে থাকুন। কাঁচা গন্ধ চলে গেলে এতে দিয়ে দিন লাউ কাঁকড়া কষা। ভালো করে সাঁতলে নিন। ইচ্ছে হলে সামান্য চিনি দিতে পারেন।
  • এবার গরম গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন। বাড়িতে যেদিন লাউ কাঁকড়া হবে সেদিন আর কোনও পদ রান্নার দরকার পড়বে না। সব ভাত এই দিয়েই উঠে যাবে।

TRAVONEWS BANGLA সবার আগে পড়ুন ব্রেকিং নিউজ। থাকছে দৈনিক টাটকা খবর, খবরের লাইভ আপডেট। সবচেয়ে ভরসাযোগ্য বাংলা খবর পড়ুন TRAVONEWS.IN বাংলার ওয়েবসাইটে

-Travo News

for More

Like, Subscribe and Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Verified by MonsterInsights